1. rakibchowdhury877@gmail.com : Narayanganjer Kagoj : Narayanganjer Kagoj
  2. admin@narayanganjerkagoj.com : nkagojadmin :
রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ১২:০৬ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
বন্যা দুর্যোগ মোকাবেলায় চেঞ্জ ফাউন্ডেশনের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ২৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবী : কাউন্সিলর রুহুলের বিরুদ্ধে এসপি বরাবর অভিযোগ (ভিডিওসহ) ফতুল্লায় অপহৃত যুবক উদ্ধার, আটক ২ ফতুল্লায় ট্রেনে কাটা পড়ে কলেজ ছাত্র নিহত সেই বিতর্কিত মোল্লা জনির ডাইংয়ের গ্যাস-বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন গোগনগরে কৃষকলীগ নেতা দৌলত মেম্বারকে কুপিয়ে হত্যা র‍্যাবের অভিযানে ৬ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার ফতুল্লায় যুবককে নির্যাতন করলো বিএনপি নেতা তৈয়ব ম্যানেজার পলাশবাড়ীতে আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন গোবিন্দগঞ্জ পৌরসভার বাজেট ঘোষণা দাপা ইসলামিয়া হাফিজিয়া মাদরাসার পরিচালনা কমিটি গঠন গোগনগরে সংঘর্ষের ঘটনায় কাশেম সম্রাটকে প্রধান আসামী করে মামলা আবারও মার্কেট ভাংচুর : গোগনগরে ইউপি মেম্বার রুবেল বাহিনী বেপরোয়া! সন্ত্রাসী রাজু প্রধান ও তার বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ স্থানীয় বাসিন্দারা! গোবিন্দগঞ্জে বজ্রপাতে যুবকের মৃত্যু

ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক হতে চায় শিবির নেতা

নারায়ণগঞ্জের কাগজ ডেস্ক
  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ১৩ জুন, ২০২২
  • ১০৩ বার পঠিত
ইউনিয়ন আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক হতে চায় শিবির নেতা

ফতুল্লা থানার বক্তাবলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আর সেই কাউন্সিলে বক্তাবলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হচ্ছেন এককালের তুখোড় ছাত্র শিবির নেতা মোঃ আনোয়ার হোসেন। তাকে সরাসরি শেল্টার দিচ্ছেন জেলা পরিষদের সদস্য ও ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জাহাঙ্গীর হোসেন। এ নিয়ে তৃণমূল নেতাকর্মীদের মাঝে বিরাজ করছে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ।

জানা যায়, ১৯৮৮ সাল হতে ১৯৯৩ সাল পর্যন্ত আনোয়ার হোসেন ছাত্র শিবিরের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলেন। পরে বক্তাবলী ইউনিয়ন যুবলীগের বর্তমান সভাপতি সদরউদ্দিন সদু মেম্বার ও চরগড়কুল উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নাজির হোসেন বুঝিয়ে আনোয়ার হোসেনকে ছাত্রলীগে নিয়ে আসেন।

পরে আনোয়ার হোসেন ফতুল্লা থানা যুবলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং আজো পর্যন্ত সেই পদে বহাল আছেন।

তৃণমূল আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের দাবী আনোয়ার হোসেনের পরিবার বিএনপি জামায়াতের রাজনীতির সাথে জড়িত। তার বড় ভাই ডাঃ জাকির হোসেন ছিলেন বিএনপি নেতা। আরেক বড় ভাই আলী হোসেন ছিলেন ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি। আনোয়ারের বাবা চান মিয়া জাকের পার্টি করতেন। তার মামাতো বোনকে শান্তি কমিটির এক সদস্যের নাতির কাছে বিয়ে দেন।

জামায়াত শিবিরের অন্তরালে পদক্ষেপ নামে একটি সংগঠন গড়ে তুলেন। আনোয়ার সেই সংগঠনে সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। সভাপতি ছিলেন জামালউদ্দিন বারী।

আনোয়ার হোসেন সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচন করার ঘোষনায় তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ বিরাজ করছে। জেলা পরিষদ সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন তাকে শেল্টার দেয়ায় ক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা।

এ বিষয়ে আনোয়ার হোসেন তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ১৯৯১ সাল থেকে বক্তাবলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগ রাজনীতিতে নেতৃত্ব দিয়েছি। আমি কখনো শিবির করিনি। ছোটবেলা থেকেই সাহিত্যচর্চার হাতেখড়ি। সাহিত্যচর্চা করতে গিয়ে ৮ম শ্রেণীর ছাত্র থাকাঅবস্থায় জামালউদ্দিন বারী আমাকে পদক্ষেপ নামের সংগঠনের সেক্রেটারি বানিয়েছে। ওই সামাজিক সংগঠনের সাথে সমাজের কল্যাণমূলক কাজ করেছি। ৬ মাসের মত সেক্রেটারি ছিলাম। এটাকে একটি মহল শিবির বানানোর অপচেষ্টা চালাচ্ছে। আমি দীর্ঘদিন যাবত ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও আওয়ামী লীগের রাজনীতি করেছি। আজীবন আওয়ামী লীগ করে যাবো। অনেকেই অনেক কথা বলবে। তিনি কুচক্রী মহলের অপপ্রচারে বিভ্রান্ত না হতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান।

বক্তাবলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামরুল ইসলাম বলেন, আনোয়ারের পরিবার জামায়াত-বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত থাকায় এবং আনোয়ার শিবির নেতা ছিল বিধায় তাকে আওয়ামী লীগের সদস্য পদ দেয়া হয়নি। যেহেতু আনোয়ার প্রাথমিক সদস্য নয় তাকে নির্বাচন করতে দেয়ার প্রশ্নই উঠেনা।

ফতুল্লা থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বক্তাবলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম শওকত আলী বলেন, যারা বলতেছে শিবির করে যদি প্রমাণ থাকে সমস্যা নাই।

নিউজটি শেয়ার করুন :

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

error: Content is protected !!