1. rakibchowdhury877@gmail.com : Narayanganjer Kagoj : Narayanganjer Kagoj
  2. admin@narayanganjerkagoj.com : nkagojadmin :
শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৯:৪৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
ফতুল্লা ইউপিতে সাড়ে ৫ কোটি টাকার খসড়া বাজেট ঘোষনা নবনিযুক্ত জেলা পরিষদ প্রশাসককে ফতুল্লা রিপোর্টার্স ক্লাবের শুভেচ্ছা সিদ্ধিরগঞ্জের ভয়ংকর মাদক ব্যবসায়ী হান্নান প্রধান, তদন্তের দাবী হকার জুবায়ের হত্যাকান্ড : মামলা তুলে নিতে বাদীকে হুমকি ফতুল্লা মডেল থানার নতুন ওসি রিজাউল হক দিপু সম্পত্তি লিখে না দেয়ায় ৭৫ বছরের বৃদ্ধা মাকে ছেলের নির্যাতন! সাংবাদিককে ছুরিকাঘাতে হত্যার চেষ্টা : ফতুল্লা রিপোর্টার্স ক্লাবের নিন্দা তরে মারছি, আরো মারমু : বেপরোয়া জাকির মেম্বার ঈদুল ফিতরে নারায়ণগঞ্জবাসীকে শাহ্-আলমের শুভেচ্ছা এবার ঈদে শোয়েব মনিরের ওয়েব সিরিজ ‘ভেড়ার পাল’ ঈদুল ফিতরে নারায়ণগঞ্জবাসীকে কাজী আনিসুর রহমানের শুভেচ্ছা আলোকিত মাসদাইর সংসদের উদ্যোগে ঈদ খাদ্য-সামগ্রী বিতরণ ঈদুল ফিতরে নারায়ণগঞ্জবাসীকে রণজিৎ মোদকের শুভেচ্ছা গরিবের কেনাকাটার ভরসা ফুটপাত ঈদুল ফিতর উপলক্ষে নারায়ণগঞ্জবাসীকে রিয়াদ মোঃ চৌধুরীর শুভেচ্ছা

সোনারগাঁয়ে মার্কস ফিড কোম্পানির আগ্রাসনে অসহায় দুই শতাধিক পরিবার

নারায়ণগঞ্জের কাগজ ডেস্ক
  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ৭ মার্চ, ২০২২
  • ৩১ বার পঠিত
সোনারগাঁয়ে মার্কস ফিড কোম্পানির আগ্রাসনে অসহায় দুই শতাধিক পরিবার

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁও উপজেলার বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়নে মেঘনার তীর ঘেঁষা ঐতিহ্যবাহী বৈদ্যেরবাজার লঞ্চঘাট এলাকায় অবস্থিত মার্কস ফিড নামের একটি কোম্পানির আগ্রাসনে অসহায় হয়ে পড়েছে ওই এলাকার প্রায় দুই শতাধিক পরিবার।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, গত দু’মাস ধরে মার্সফিড কোম্পানি ওই এলাকার দুই গ্রামের প্রায় ২ শতাধিক পরিবারের চলাচলের দুটি রাস্তা সরু করে চলাচলে অনুপযোগী করে রেখেছে। এছাড়াও কোম্পানিটি ওই সকল পরিবারের লোকজনকে জায়গা জমি বিক্রি করে অন্যত্র ছেড়ে যাওয়ার হুমকি দিচ্ছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

কোম্পানির নির্মাণকাজের ব্যবহৃত বালুসহ বিভিন্ন সামগ্রী পাশ্ববর্তী বাড়িতে রেখে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করছে বলে অভিযোগ তোলেন ভুক্তভোগীরা। পশু খাদ্য উৎপাদনে ব্যবহৃত বর্জ্যের গন্ধে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে এলাকার জনগন। সকলকেই নাক চেপে ধরে চলতে হয়। তবে কোম্পানি কর্তৃপক্ষ সকল বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান আল আমিন সরকারকে বিষয়টি দেখবালের দায়িত্ব দিয়েছেন বলে জানান। তারা অন্য কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি।

জানা যায়, উপজেলার বৈদ্যোরবাজার এলাকায় পশু খাদ্য উৎপাদনের জন্য মার্কস ফিড নামের কোম্পানি গড়ে উঠার পর কোম্পানি তাদের নিজস্ব জমি ছাড়াও পাশ্ববর্তী বিভিন্ন লোকের বাড়ির জায়গা দখল করে কোম্পানির নির্মাণ কাজ করছেন। কেউ বাধা দিলেই ওই পরিবারকে চলাচলের রাস্তা সংকোচিত করে সমস্যার সৃষ্টি করে থাকে। এছাড়াও কোম্পানির নিজস্ব দালালদের মাধ্যমে হুমকি ধামকি দিয়ে জমি বিক্রি করতে বাধ্য করছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী ও এলাকাবাসীর।

তাদের অভিযোগ, এই কোম্পানির আশপাশে প্রায় ২ শতাধিক পরিবার এখনো বসবাস করে। এ পরিবারগুলোকে দালালদের মাধ্যমে হুমকি দিয়ে জমি বিক্রিতে বাধ্য করছে। এছাড়াও চলাচলের রাস্তা সংকোচিত করে রেখেছে। যে রাস্তা দিয়ে মৃত কোন লাশও বের করা সম্ভব না।

বৈদ্যোরবাজার রামগঞ্জ গ্রামের গৃহবধু অনিতা রানী দাস বলেন, দীর্ঘ সময় ধরে আমরা নদীতে চলাচলের জন্য সহজেই যাতায়ত করতাম। কিন্তু এ কোম্পানি গত কয়েক মাস ধরে বাউন্ডারি দেয়াল দিয়ে রাস্তা ছোট করে রেখেছে। নদীতে যাওয়ার মতো কোন উপায় নাই। অন্যের বাড়ি হয়ে নদীতে দৈনন্দিন কাজ করার জন্য যেতে হচ্ছে। এছাড়াও নদীর ঘাটে আমাদের নৌকা রাখতে বাধা দিচ্ছে। কোম্পানির লোকজন এসে বাড়িঘর বিক্রি করে অন্যত্র চলে যাওয়ার জন্য বাধ্য করছে।

গৃহবধু মাসুদা বেগম বলেন, কোম্পানি আমার বাড়ির সীমানা ঘেঁষে প্রায় ১শ ফুট গভীর করে হাউস নির্মাণ করছে। ফলে আমার বসত ঘর ভেঙ্গে গেছে। এ বিষয়ে প্রতিকার চাইতে গেলে কোম্পানির লোকজন হুমকি দিয়ে জমি বিক্রি করে দিতে বলছেন।

সাতভাইয়া পাড়া গ্রামের আমিনুল ইসলাম বলেন, মার্কস ফিড নামের কোম্পানি আমাদের বাড়িতে যাতে জলাবন্ধতার সৃষ্টি হয় এমনভাবে বালু স্তুপ করে রেখেছে। গত কয়েকদিন আগে একটু বৃষ্টিতেই বাড়িঘরে পানি জমে জলাবদ্ধতার কবলে পড়তে হয়েছে। ভরা মৌসুমে আমরা ঘর থেকে বের হতে পারিনা, পানির জলাবদ্ধতায় ময়লা আবর্জনা জমে পরিবেশ দুষিত হয়ে যায়।

মার্কস ফিডের ব্যবস্থাপক জসিম উদ্দিন বলেন, এ বিষয়ে আমরা কোন কথা বলতে পারবো না। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল আমিন সরকার সকল দায়-দায়িত্ব নিয়েছেন।

বৈদ্যেরবাজার ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আল আমিন সরকার বলেন, এলাকাবাসীর অনুরোধে কোম্পানিতে গিয়ে ঘর ভাঙ্গা ও কয়েকটি ঘর ডেবে যাওয়ার সত্যতা পেয়েছি। কোম্পানি ও এলাকার লোকজনের সামনে তাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার প্রতিশ্রতি দিয়েছি। তবে রাস্তা সংকোচিত করার বিষয়ে কেউ অভিযোগ করেনি বলে তিনি জানান।

সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌহিদ এলাহী বলেন, বসবাসরত এলাকাবাসীর ক্ষতি করে যে কোন কোম্পানি তার প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলবে সেটা একেবারেই বে-আইনি, আমরা বিষয় তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবো।

নিউজটি শেয়ার করুন :

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর..

error: Content is protected !!